Ad Clicks : Ad Views :

অসাধারণ বার্সা, রেকর্ড ছোঁয়ার ম্যাচে দুর্দান্ত মেসি

/
/
/

এমন এক রাতে লিওনেল মেসি গোল পাবেন না, তা কী হয়! রেকর্ড ছোঁয়ার ম্যাচে জোড়া গোল করার মাঝে সতীর্থের গোলে রাখলেন অবদান। নজরকাড়া পারফরম্যান্সে আলো ছড়াল বার্সেলোনা। ওয়েস্কাকে উড়িয়ে ধরে রাখল লা লিগায় অজেয় পথচলা।

কাম্প নউয়ে সোমবার রাতে লা লিগার ম্যাচটি ৪-১ গোলে জিতেছে বার্সেলোনা।

মেসি দলকে এগিয়ে নেওয়ার পর ব্যবধান দ্বিগুণ করেন অঁতোয়ান গ্রিজমান। রাফা মির একটি গোল শোধ করার পর দ্বিতীয়ার্ধে অস্কার মিনগেসার গোলে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নেয় রোনাল্ড কুমানের দল। শেষে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন রেকর্ড ছয়বারের বর্ষসেরা ফুটবলার।

দারুণ এই জয়ে আবারও পয়েন্ট তালিকায় দুইয়ে ফিরেছে প্রতিযোগিতার দ্বিতীয় সফলতম দলটি। শীর্ষে থাকা আতলেতিকো মাদ্রিদের সঙ্গে তাদের ব্যবধান এখন ৪ পয়েন্টের।

লিগ শিরোপা পুনরুদ্ধারের অভিযানে বাজে শুরুর পর ছন্দে ফেরা বার্সেলোনা এই নিয়ে টানা ১৭ ম্যাচ অপরাজিত রইলো। গত ৫ ডিসেম্বরের পর আর হারেনি তারা।

এই ম্যাচ দিয়ে ক্লাবের ইতিহাসে চাভি এরনান্দেসের সর্বোচ্চ ম্যাচের রেকর্ড স্পর্শ করলেন মেসি। সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে দুজনের ম্যাচ এখন ৭৬৭।
রেকর্ড ছোঁয়ার উপলক্ষ রাঙাতে মোটেও দেরি করেননি মেসি। ত্রয়োদশ মিনিটে অসাধারণ নৈপুণ্যে দলকে এগিয়ে নেন তিনি। দারুণ ভঙ্গিমায় প্রতিপক্ষের বাধা এড়িয়ে বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে ডি-বক্সের বাইরে থেকে বাঁ পায়ের জোরালো শটে গোলটি করেন আর্জেন্টাইন তারকা। বল ক্রসবারের ভেতরের কানায় লেগে জালে জড়ায়।

২৬তম মিনিটে ভালো একটি সুযোগ তৈরি করেন পাবলো মাফেও। তবে স্প্যানিশ ডিফেন্ডারের নিচু শট ঝাঁপিয়ে ঠেকিয়ে দেন মার্ক-আন্ড্রে টের স্টেগেন। সাত মিনিট পর মেসির পাস ধরে জর্দি আলবার দুরূহ কোণ থেকে নেওয়া শট ক্রসবারে বাধা পায়।

গ্রিজমানের ব্যবধান দ্বিগুণ করা গোলটিও দর্শনীয়। ৩৬তম মিনিটে পেদ্রির বাড়ানো বল ধরে একটু এগিয়ে সামনে ফাঁকা পেয়ে দূর থেকে জোরালো শট নেন ফরাসি ফরোয়ার্ড। ঝাঁপিয়েও বলের নাগাল পাননি গোলরক্ষক।

বিরতির আগে আবারও ক্রসবারে বল লাগার হতাশা যোগ হয় স্বাগতিক শিবিরে। একারণে এবার ফ্রেংকি ডি ইয়ংয়ের প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়ে যায়।বিরতির ঠিক আগের শেষ শটে ব্যবধান কমায় ওয়েস্কা। দারুণ এক প্রতি-আক্রমণে রাফা মির ডি-বক্সে ঢুকে পড়লেও সতীর্থের ক্রসে পা লাগাতে ব্যর্থ হন। তবে টের স্টেগেন এগিয়ে এসে তাকে ফাউল করে বসেন। পেনাল্টি পেয়ে কাজে লাগাতে ভুল করেননি স্প্যানিশ ফরোয়ার্ড মির।

আরো পড়ুনঃ হিরো আলমের প্রযোজনায় দ্বিতীয় ছবি ‘টোকাই’ আসছে খুব শীঘ্রই

চাপ ধরে রেখে দ্বিতীয়ার্ধের অষ্টম মিনিটে ব্যবধান বাড়ায় বার্সেলোনা। বাঁ দিক থেকে মেসির দারুণ ক্রসে লাফিয়ে হেডে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন অরক্ষিত মিনগেসা। বার্সেলোনা যুব দল থেকে উঠে আসা তরুণ ডিফেন্ডারের মূল দলের হয়ে এটি প্রথম গোল।

চার মিনিট পর দারুণ প্রতি-আক্রমণে সুবর্ণ সুযোগ পায় ওয়েস্কা। তবে বাঁ দিক থেকে সতীর্থের হেডে গোলমুখে বল পেয়েও জালে জড়াতে পারেননি মির। বল তার বুকে লেগে ক্রসবারের ওপর দিয়ে যায়। অবিশ্বাস্য মিস!
নির্ধারিত সময়ের শেষ মিনিটে স্কোরলাইন ৪-১ করেন মেসি। ত্রিনকাওয়ের পাস পেয়ে দূর থেকে বার্সেলোনা অধিনায়কের নেওয়া শটে বল প্রতিপক্ষের এক জনের পায়ে লেগে দিক পাল্টে জালে জড়ায়।

আরেকটি পিচিচি ট্রফির পথে ছুটে চলা মেসির গোল হলো ২১টি। বার্সেলোনার জার্সিতে ৭৬৭ ম্যাচে তার মোট গোল এখন ৬৬১।
২৭ ম্যাচে ১৮ জয় ও পাঁচ ড্রয়ে দুইয়ে ফেরা বার্সেলোনার পয়েন্ট হলো ৫৯। ২ পয়েন্ট কম নিয়ে তিনে নেমে গেছে রিয়াল মাদ্রিদ।

৬৩ পয়েন্ট নিয়ে সবার ওপরে আতলেতিকো

  • Facebook
  • Twitter
  • Google+
  • Linkedin
  • Pinterest

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This div height required for enabling the sticky sidebar